1. admin@thedailypadma.com : admin :
ইউক্রেনকে রাশিয়ার মুখে একা ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ; আশা দিলেও এখন কেউ পাশে নেই: জেলেনস্কি - দ্য ডেইলি পদ্মা
বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০২:৪৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
ফরিদপুরে পৌর আওয়ামীলীগের কমিটি বিলুপ্ত না করে নতুন করে আহবায়ক কমিটি ঘোষনা ।। আন্দোলনে নেতা কর্মীরা ফরিদপুরে আওয়ামীলীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আহাদ সেলিম এর ব্যাপক গন সংযোগ সারা দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে ১৫ জনের মৃত্যু ছয় দিনে বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার নিট রিজার্ভ কমেছে ৩০ কোটি মার্কিন ডলার নিজে থেকেই তাকে দল থেকে বাদ দিতে বলেছিলেন তামিম বিশ্বকাপ খেলতে দেশ ছাড়ল টাইগাররা ভিডিও বার্তায় সাম্প্রতিক ইস্যু নিয়ে কথা বলবেন তামিম ইকবাল ইরাকে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে অগ্নিকাণ্ডে বর ও কনেসহ প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ১১৩ জন টানা তিনদিন ছুটি পাচ্ছেন সরকারি চাকরিজীবীরা রাশিচক্র অনুযায়ী বুধবারের দিনটি কেমন যাবে আপনার

ইউক্রেনকে রাশিয়ার মুখে একা ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ; আশা দিলেও এখন কেউ পাশে নেই: জেলেনস্কি

  • Update Time : শুক্রবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ৭৬ Time View

রাশিয়ার সর্বাত্মক হামলার মুখে ইউক্রেনকে একা ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। টানা কয়েক সপ্তাহের উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যে স্থল, আকাশ এবং সমুদ্রপথে ইউক্রেনে বড় ধরনের হামলা শুরুর পর শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) একথা বলেন তিনি।

এদিকে হামলা শুরুর প্রথম দিনেই ইউক্রেনে ১৩৭ জন নিহত হয়েছেন বলেও জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।

বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভিডিওবার্তায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেন, ‘আমাদের দেশকে রক্ষার জন্য (সবাই) আমাদেরকে একা ছেড়ে গেছে।’

“I have asked 27 European leaders whether Ukraine will be in NATO. Everyone is afraid, no one answers.”

Ukraine’s President Zelenskyy says his country has been left alone to fend off Russia’s military incursion.

তিনি বলেন, ‘(ইউক্রেনকে রক্ষায়) আমাদের পাশে থেকে কারা লড়াই করতে প্রস্তুত? আমি কাউকেই দেখতে পাই না। ন্যাটোর সদস্যপদ পাওয়ার ব্যাপারে কে ইউক্রেনকে নিশ্চয়তা দেবে? সবাই ভীত।’

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ‘ইউক্রেনকে সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্য করতে আমি ২৭ জন ইউরোপীয় নেতাকে অনুরোধ করেছি। কিন্তু কেউই কোনো উত্তর দেয়নি। সবাই ভীত।’

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, ‘আশার কথা শুনিয়ে বিশ্বনেতাদের কেউ যুদ্ধে সাহায্য করতে রাজি নয়।’

‘বিদেশি নেতাদের সঙ্গে অনেকবার কথা হয়েছে’ উল্লেখ করে জেলেনস্কি বলেন, ‘তাদের অনেক আশার কথা শুনেছি। প্রথমটি হলো, তারা আমাদের সঙ্গে আছে, আমাদের সমর্থন করছে। আমি প্রতিটি রাষ্ট্রের প্রতি কৃতজ্ঞ যারা আমাদের শুধু কথায় নয়, কাজেও সাহায্য করেছে। কিন্তু দেশের আত্মরক্ষার বিষয়টি সামনে আসার পর সবাই আমাদের একা করে দিয়েছে। কে আমাদের সঙ্গে যুদ্ধ করতে প্রস্তুত? সত্যি কথা বলতে, আমি কাউকে দেখছি না।’

নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা এক ভিডিও বার্তায় এসব কথা বলেন ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট। খবর সিএনএন।

ইউক্রেনকে ন্যাটোর সদস্য করতে সবাই ভয় পায় বলেও মন্তব্য করেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। এসময় বেশ অস্থির ও ক্লান্ত দেখাচ্ছিল তাকে।

জেলেনস্কি বলেন, ‘ন্যাটোতে ইউক্রেনের যোগদানের নিশ্চয়তা দিতে কে প্রস্তুত? সত্যি বলতে, সবাই ভয় পায়।’

ইউক্রেনের ন্যাটোতে যোগদানে বিষয়ে বন্ধু দেশগুলোর সহায়তা পাননি বলে অভিযোগ করে জেলেনস্কি বলেন, ‘আমি সবাইকে জিজ্ঞেস করেছি, তারা আমাদের সঙ্গে আছে কিনা। তারা বলেছে, তারা আমাদের সঙ্গে আছে, কিন্তু আমাদের তাদের জোটে নিতে প্রস্তুত নয়।’

‘ইউক্রেনকে ন্যাটোর সদস্য করা হবে কিনা-এ বিষয়ে আজ আমি ইউরোপের ২৭ জন নেতার সঙ্গে কথা বলেছি। আমি তাদের সরাসরি জিজ্ঞেস করেছি। সবাই ভীত, কেউ উত্তর দেয়নি। কিন্তু আমরা ভয় পাই না। আমরা কিছুতেই ভয় পাই না।’ বলেন জেলেনস্কি।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এবারই প্রথম ইউরোপের প্রথম দেশ হিসাবে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী স্থল, আকাশ এবং সমুদ্রপথে ইউক্রেনে সবচেয়ে বড় হামলা শুরু করেছে। একসঙ্গে তিন দিক দিয়ে হওয়া এই হামলায় ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র বৃষ্টির মতো পড়েছে। এছাড়া ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের চেরনিহিভ, খারকিভ এবং লুহানস্ক সীমান্ত পেরিয়ে হাজার হাজার রুশ সৈন্য স্থলপথে দেশটিতে ঢুকে পড়েছে।

রাশিয়ার হামলার প্রথম দিনে সেনা ও সাধারণ মানুষসহ ইউক্রেনে ১৩৭ জন নিহত হয়েছেন জানিয়ে ভিডিওবার্তায় জেলেনস্কি বলেন, ‘আজ (বৃহস্পতিবার) আমরা আমাদের ১৩৭ জন বীর নাগরিককে হারিয়েছি। নিহতদের মধ্যে সামরিক বাহিনীর সদস্য এবং বেসামরিক মানুষও রয়েছেন। এছাড়া রাশিয়ার হামলায় আরও ৩১৬ জন ইউক্রেনীয় আহত হয়েছেন।’

রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর দিকে ইঙ্গিত করে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ‘তারা মানুষকে হত্যা করছে এবং শান্তিপূর্ণ শহরগুলোকে সামরিক লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছে। এটা লজ্জাজনক এবং কখনোই ক্ষমা করা হবে না।’

ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেন, রুশ নাশকতা গ্রুপগুলো রাজধানী কিয়েভে প্রবেশ করেছে। আর তাই শহরের বাসিন্দাদের সতর্ক থাকতে এবং কারফিউ মেনে চলতেও অনুরোধ জানান তিনি।

এদিকে রাশিয়ার এই সর্বাত্মক হামলার মুখেও নিজের পরিবারকে নিয়ে ইউক্রেনেই অবস্থানের ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। যদিও তাকে ‘টার্গেট নাম্বার ওয়ান’ হিসেবে ঘোষণা করেছে রাশিয়া।

জেলেনস্কির ভাষায়, ‘রাষ্ট্রপ্রধানকে অপসারণ করে তারা (রাশিয়া) রাজনৈতিকভাবে ইউক্রেনকে ধ্বংস করতে চায়।’

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
স্বপ্নপূরণের ক্ষণগণনা
অপেক্ষা উদ্বোধনের
দিন
ঘন্টা
মিনিট
সেকেন্ড
© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Customized By BreakingNews